Friday, December 27, 2019

ইরাকে ইরানের কোন কার্যক্রম বরদাশত করা হবে নাঃ ইহুদীবাদী সন্ত্রাসী ইসরাঈলের


আন্তর্জাতিক ডেস্ক।। বিদেশী শক্তির হস্তক্ষেপ ও দেশজুড়ে চলা নৈরাজ্যের প্রতিবাদে চলা কয়েক মাসের টানা বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছিলেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী আদেল আবদুল মাহদি। তবে প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগেও বিক্ষোভ থামেনি দেশটিতে। একের পর এক বিক্ষোভ আর সহিংসতার ঘটনা ঘটছেই। এদিকে দেশটির প্রধানমন্ত্রীর পদ নিয়ে ইরাকের ওপর সবসময় খবরদারি চালানো ইরান ও ইসরাঈলের মধ্যে নতুন করে সংকট দেখা দিয়েছে। সংবাদসূত্র: আল-জাজিরা, বিবিসি

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী পদে প্রার্থী ঘোষণা করেছে দেশটির ইরানপন্থিদের জোট। দক্ষিণাঞ্চলীয় তেলসমৃদ্ধ বাসরা প্রদেশের গভর্নর আসাদ আল এইদানিকে ইরান সমর্থিত জোটের প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে। এমন সময়ে এ প্রার্থী মনোনয়নের ঘটনা ঘটল যার কিছুদিন আগেই ইরাকজুড়ে বিক্ষোভকারীরা দেশটিতে বিদেশি হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলে। ওই সময় দফায় দেশটির ইরানি কনসু্যলেটেও হামলা করা হয়। সম্প্রতি বাগদাদের দুই মিত্র ওয়াশিংটন ও তেহরানের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েছে। ইরাকের রাজনীতি ও সামরিক ক্ষেত্রে এই দুই দেশেরই প্রভাব রয়েছে। ফলে বহু ইরাকি নাগরিকের আশঙ্কা, আঞ্চলিক প্রভাবের জন্য বাগদাদ যুক্তরাষ্ট্র-ইরানের মধ্যে ক্রমবর্ধমান বিরোধের মাঝে পড়ে যেতে পারে।

গত নভেম্বরে বিক্ষোভের মুখে প্রধানমন্ত্রী আদেল আবদুল মাহদী পদত্যাগের ঘোষণা দেন। ফলে নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন অপরিহার্য হয়ে পড়ে। আদেল আবদুল মাহদী বর্তমানে অন্তর্র্বর্তীকালীন সরকারের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ইরানপন্থি জোটের মুখপাত্র আহমাদ আল আসাদি বলেন, পার্লামেন্টের সবচেয়ে বড় শক্তি হিসেবেই তারা প্রধানমন্ত্রী পদে বাসরা প্রদেশের গভর্নরকে মনোনয়ন দিয়েছেন। ইরাকের রাজনীতিতে ইরান সমর্থিত এ জোট বিনা বস্নক নামে পরিচিত। সাবেক প্রধানমন্ত্রী নুরি আল মালিকিও এ জোটের সদস্য ছিলেন।

ইরানকে হুঁশিয়ারি ইহুদীবাদী সন্ত্রাসী ইসরাঈলের

অন্যদিকে, ইরানকে ইরাকে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে ইসরাঈল। বুধবার দেশটির সেনাবাহিনীর চিফ অব স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল আভিভ কোচাভি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

এমন সময়ে ইসরাঈলের পক্ষ থেকে এমন ঘোষণা এলো যার এক দিন আগে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী পদে নিজেদের প্রার্থীর নাম ঘোষণা দেশটির ইরানপন্থিদের জোট। বুধবার ইসরাঈলের হার্জলিয়া শহরে এক অনুষ্ঠানে ইরাকের রাজনীতিতে ইরানের প্রভাব নিয়ে কথা বলেন ইসরাঈলি সেনাবাহিনীর চিফ অব স্টাফ। সে বলেছে, 'ইরানের রাষ্ট্রীয় বাহিনী কুদস ফোর্স প্রতিদিন ইরাকে উন্নত প্রযুক্তির অস্ত্রশস্ত্র সরবরাহ করছে। ইসরাঈল এটা বরদাশত করবে না।' লেফটেন্যান্ট জেনারেল আভিভ কোচাভি বলেছে, 'ইরাক একটি গৃহযুদ্ধের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। আর সেখানে নিয়মিত কার্যক্রম পরিচালনা করছে ইরানি কুদস ফোর্স। এর আগে ইসরাঈলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছে, ইরানের কোথাও কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।


শেয়ার করুন

0 facebook: